৯ টি মুলতানি মাটির সহজ ফেইস প্যাক

9 MULTANI mitti Easy Faces Pack

আমি আজকে যে লেখাটি লিখতে যাচ্ছি সেই  লেখাটি হচ্ছে মুলতানি মাটি। মুলতানি মাটি কত রকমভাবে ব্যবহার করতে পারবেন তার উপর। মসৃণ ও কোমল ত্বক পাওয়া থেকে শুরু করে, মুখের কালো দাগ এবং ত্বকের অমসৃণতা দূর করা পর্যন্ত – মুলতানি মাটির কাছে সব সমস্যার সমাধান আছে। এটি একটি চমৎকার ত্বক পরিষ্কারক হিসেবেও পরিচিত। মুলতানি মাটি সূর্যের তাপ এবং দূষিত বায়ূতে যাওয়ার ফলে ত্বকের ভিতরে যে দূষিত তেল, ধূলাবালি এবং মৃত কোষ জন্মায় সেগুলো প্রতিরোধ করতে সাহায্য করে।

এই চমৎকার উপকরণটির সম্পর্কে জানতে আরো পড়তে থাকুন এবং জানুন আপনার মুখের সমস্যাগুলো দূর করতে এই মাটি দিয়ে তৈরি বিভিন্ন ফেইস প্যাক কিভাবে ঘরে বানাবেন।

প্রথমে আপনাদেরকে পরিচয় করিয়ে দিব মুলতানি মাটি কি?

মুলতানি মাটি কি?
মুলতানি মাটি আসলে কি? কেন এটি মুলতান শহরের নামে নামকরণ করা হয়েছে?
আঠারোশ শতাব্দীতে, মুলতান শহরের মাটির নিচ থেকে চুনযুক্ত কাদামাটির দলা বের করা হয়েছিল, এবং শহরের অধিবাসীরা এর আশ্চর্যজনক পরিষ্কারক বৈশিষ্ট্য দেখে খুবই বিস্মিত হয়েছিল। এর জনপ্রিয়তা এত বেশি বেড়ে গিয়েছিল যে এটি দিয়ে পুরাতন স্মৃতিসৌধগুলিকে পরিষ্কার ও পুনঃনির্মাণের জন্য সুপারিশ করা হয়েছিল।

এখন, কয়েক বছর পর, মুলতানি মাটি প্রত্যেক পরিবারের একটি অংশ হয়ে উঠেছে, এবং এই মাটি কয়েকটি উদ্দেশ্যে ব্যবহার করা হচ্ছে – ত্বককে ঠান্ডা করা থেকে শুরু করে ত্বক উজ্জ্বল করা পর্যন্ত। এই ঐতিহ্যবাহী ত্বকের যত্নের উপাদান খনিজ পদার্থ সমৃদ্ধ, যেমন অ্যালুমিনিয়াম সিলিকেট, যা উচ্চ শোষন ক্ষমতার বৈশিষ্ট্য সম্পন্ন যা ত্বককে সতেজ এবং উজ্জ্বল করে তুলে।

তৈলাক্ত ও ব্রণ-প্রবণ ত্বকের জন্য মুলতানি মাটি অত্যন্ত উপকারী। এর ভিতরে থাকা চুন ক্ষতিকর ব্যাক্টেরিয়া মেরে ফেলে এবং অতিরিক্ত তেল ও ধূলাবালি দূর করে, ত্বককে পরিষ্কার ও নরম করে তুলে। এটি ত্বকে ঠান্ডা অনুভুতি প্রদান করে এবং তীব্র ব্রণের কারণে সৃষ্ট প্রদাহ থেকে মুক্তি প্রদান করে। এই মাটি ত্বককে টান টান করতে সাহায্য করে, যা ত্বকের বলিরেখা দূর করে। আপনার শুষ্ক ত্বকই হোক অথবা স্বাভাবিক ত্বকই হোক না কেন, মুলতানি মাটি আপনাকে কখনই হতাশ করবে না।

কিন্তু লোকে বলে, “ভালো জিনিষ সব সময় প্যাকেজ চুক্তিতে আসে”। অর্থাৎ, মুলতানি মাটি যখন বেশ কিছু উপাদানের সাথে ব্যবহার করা হয় তখন আরো উপকারী হয়ে উঠে।

মুলতানি মাটির ফেইস প্যাক
১. তৈলাক্ত ত্বক।
২. মসৃণ ত্বক।
৩. দাগহীন ত্বক।
৪. উজ্জ্বল ত্বক।
৫. ডার্ক প্যাচেস দূর করে।
৬. টান টান এবং তেলহীন ত্বক।
৭. ফর্সা করা।
৮. রোদে পোড়া।
৯. ব্রণ বা মেছতার দাগ।

১. তৈলাক্ত ত্বকের জন্য
মুলতানি মাটি এবং গোলাপ জলের ফেইস প্যাক
আপনার তেল চিটচিটে ত্বক এবং ব্রণ প্রবণ ত্বক নিয়ে সমস্যায় ভুগছেন? মুলতানি মাটি এবং গোলাপ জলের পেস্ট ফেইস প্যাক হিসেবে ব্যবহার করলে এই প্যাক আপনাকে তৈলাক্ত এবং অনিয়ন্ত্রিত ত্বককে কিছু দিনের মধ্যে বিদায় বলতে সাহায্য করবে। মুলতানি মাটি এবং গোলাপ জলের মাস্ক আপনার ত্বকের pH স্তরের ভারসাম্য রক্ষা করে, প্রাকৃতিকভাবে ত্বককে ঠান্ডা করে এবং তৈলাক্ততা হ্রাস করে। এটি বাহিরের ত্বকের মৃত চামড়া দূর করে আপনাকে তেলবিহীন এবং উজ্জ্বল ত্বক প্রদান করে।

উপকরণ

  • ছোট কাপের ১ কাপ মুলতানি মাটি
  • ২ টেবিল চামচ মুলতানি মাটি

কিভাবে বানাবেন

  • মুলতানি মাটি এবং গোলাপ জল একসাথে মিশিয়ে একটি মসৃণ পেস্ট তৈরি করুন।
  • এই ঘরোয়া সুন্দর ঘ্রাণযুক্ত প্যাকটি আপনার মুখে সমানভাবে লাগান এবং ১৫ মিনিট রেখে দিন।
  • পুরোপুরি শুকিয়ে যাওয়ার পর ঠান্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। আপনার ত্বক মসৃণ এবং তেলহীন হবে।

ভালো ফল পাওয়ার জন্য সপ্তাহে অন্তত ৩ বার ব্যবহার করুন।

২. মসৃণ ত্বকের জন্য
মুলতানি মাটি, বাদাম এবং দুধের ফেইস প্যাক
আপনি কি এমন একটি ত্বক চান যা একটি শিশুর ত্বকের সাথে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে পারে? মুলতানি মাটি যখন বাদাম এবং দুধের সাথে মিশানো হয়, আপনার ত্বক আরো মসৃণ ও কোমল করে তুলে। তবে, আমাদের অনেকে কাছে এটা আশীর্বাদ স্বরূপ, বিশেষ করে যারা শুষ্ক ত্বকের অধিকারী এবং ত্বকে সামান্য ময়েশ্চার পাওয়ার জন্য উদ্বিগ্ন থাকে।

উপকরণ

  • ১ টেবিল চামচ ভেঙ্গে গুড়ো করা বাদাম
  • ১ টেবিল চামচ কাঁচা দুধ
  • ছোট কাপের ১ কাপ মুলতানি মাটি

কিভাবে বানাবেন

  • মুলতানি মাটি, বাদামের পেস্ট এবং দুধ দিয়ে একটি মসৃণ পেস্ট তৈরি করুন এবং ১ মিনিটের জন্য রেখে দিন।
  • পরিস্কার ও শুকনো মুখে লাগান। শুকিয়ে যাবার পর স্পঞ্জের সাহায্যে প্যাকটি তুলে ফেলুন।

মসৃণ ও নমনীয় ত্বকের জন্য সপ্তাহে ২ বার প্যাকটি ব্যবহার করুন।

৩. দাগহীনত্বকের জন্য
মুলতানি মাটি এবং টমেটোর রসের ফেইস প্যাক
আপনি কি আপনার মুখের কালো এবং কুৎসিত দাগ গুলো থেকে মুক্তি পেতে চান? আমরা সবাই জানি টমেটোর রস একটি খুব ভালো ত্বক পরিস্কারক, কিন্তু আপনি কি জানেন মুলতানি মাটির সাথে টমেটো ব্যবহার করলে এটি আপনার ত্বককে উজ্জ্বল এবং দাগহীন করে তুলবে? মুলতানি মাটি, টমেটোর রস এবং চন্দন কাঠের গুড়োর পেস্ট আপনার মুখের দাগ কমাতে সাহায্য করবে এবং এই পেস্টের সাথে সামান্য হলুদ গুড়ো মিশালে এটি আপনাকে প্রয়োজনীয় দীপ্তি দিবে।

উপকরণ

  • ২ টেবিল চামচ টমেটো রস
  • ২ টেবিল চামচ মুলতানি মাটি
  • ১ চা চামচ চন্দন কাঠের গুড়ো
  • ১ চা চামচ হলুদ গুড়ো

কিভাবে বানাবেন

  • সব উপকরন মিশিয়ে একটি পেস্ট তৈরি করুন।
  • গরম পানি দিয়ে মুখ ধোয়ার ১০ মিনিট আগে এটি মুখে লাগান।

দীপ্তিময় ত্বক পাওয়ার জন্য মুলতানি মাটির এই ফেইস প্যাকটি প্রতিদিন ব্যবহার করুন।

সতর্কতাঃ টমেটোর রস সবার ত্বকে মানানসই নাও হতে পারে, তাই এটি ফেইস প্যাকে ব্যবহার করার আগে আপনার হাতের কব্জির নিচের দিকে সামান্য একটু লাগিয়ে পরীক্ষা করে নিন।

৪. উজ্জ্বল ত্বকের জন্য
আপনি কি আপনার শুষ্ক এবং প্রাণহীন ত্বক নিয়ে ক্লান্ত? প্রখর এবং ভয়ংকর সূর্যের তাপে বাহিরে যাওয়া আমাদের অনেকের জন্য কষ্টকর হতে পারে, বিশেষ করে তখন যখন এটি আপনার ত্বকের উজ্জ্বলতা শুষে নেয়। এসপিএফ (SPF) ক্রিম ব্যবহার এবং মুখ ঢেকে চলা এ সময়ে বাড়তি সতর্কতা হিসেবে সহজে কাজে আসতে পারে। আপনি যদি আপনার হারিয়ে যাওয়া উজ্জ্বলতা ফিরে পেতে চান তাহলে এই প্যাকটি ব্যবহার করুন।

ঊপকরণ

  • ৩ টেবিল চামচ মুলতানি মাটি
  • ১ চা চামচ টমেটোর রস
  • ১ চা চামচ মধু
  • ১ চা চামচ লেবুর রস
  • ১/২ চা চামচ কাঁচা দুধ

কিভাবে বানাবেন

  • মুলতানি মাটি, টমেটোর রস, মধু, লেবুর রস এবং সামান্য দুধ একসাথে মিশিয়ে নিন।
  • মুখে লাগিয়ে ১০ মিনিট রেখে ধুয়ে ফেলুন।

উজ্জ্বল ত্বক পেতে সপ্তাহে অন্তত একবার ব্যবহার করুন।

৫. ডার্ক প্যাচেস থেকে মুক্তি পেতে মুলতানি মাটি এবং পুদিনা পাতার ফেইস প্যাক
ডার্ক প্যাচেস সত্যিই খুব বিব্রতকর হতে পারে, বিশেষ করে তখনই যখন এগুলো ত্বকের দৃশ্যমান জায়গাতে হয়। এরা আমাদেরকে বাজারের পণ্যগুলোর উপর নির্ভরশীল করে ফেলে যেগুলো আমাদের সর্বোত্তম ফলাফল প্রদানের প্রতিশ্রুতি প্রদান করে কিন্তু আসলে এগুলো কোন কাজেই আসে না। মুলতানি মাটি, পুদিনা পাতা এবং দইয়ের ফেইস প্যাক ব্যবহার করুন এবং দেখবেন ১ মাসের মধ্যে ডার্ক প্যাচেস গুলো গায়েব হয়ে গিয়েছে।

উপকরণ

  • ১ টেবিল চামচ মুলতানি মাটি
  • ১ টেবিল চামচ পুদিনা পাতার পাউডার
  • ১ টেবিল চামচ দই

কিভাবে বানাবেন

  • মুলতানি মাটি, পুদিনা পাতার পাউডার এবং দই একসাথে মিশান।
  • আক্রান্ত স্থানে পেস্টটা লাগান এবং ২০ মিনিটের জন্য রেখে দিন।
  • ডার্ক প্যাচেস থেকে পুরোপুরি মুক্তি পেতে গরম পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

৬. টান টান এবং তেলহীন ত্বক পাওয়ার জন্য মুলতানি মাটি এবং চন্দন কাঠের গুড়োর ফেইস প্যাক
একজন রানওয়ের মডেলের মত টান টান এবং তেলহীন ত্বক পাওয়ার স্বপ্ন দেখছেন? আপনি কি জানেন প্রাকৃতিকভাবে টান টান এবং সুন্দর মুখ পাওয়া খুব সহজ একটি ব্যাপার হতে পারে? চন্দন গুড়ো, মুলতানি মাটি এবং কাঁচা দুধ দিয়ে তৈরি ফেইস প্যাক ব্যবহার করুন এবং একজন মডেলের মত হওয়ার অনুভূতি উপভোগ করুন।

উপকরণ

  • ১ টেবিল চামচ মুলতানি মাটি
  • ১ টেবিল চামচ চন্দন গুড়ো
  • ১ টেবিল চামচ কাঁচা দুধ

প্রক্রিয়া

  • চন্দন গুড়ো এবং মুলতানি মাটির সাথে কয়েক ফোঁটা দুধ মিশিয়ে নিন।
  • আপনার পুরো মুখে ২০ মিনিটেরো বেশি সময় ধরে লাগিয়ে রাখুন। তারপর পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

সর্বোত্তম ফলাফলের জন্য সপ্তাহে ২ বার এই প্যাকটি লাগান।

৭. ফর্সা ত্বকের জন্য মুলতানি মাটি এবং পেঁপের ফেইস প্যাক
আপনার ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়ানোর জন্য এবং ত্বক সুস্থ রাখার জন্য প্রাচীন যুগ থেকেই পেঁপের ব্যবহার করা হচ্ছে। মধু এবং মুলতানি মাটির সাথে পেঁপে ব্যবহার করলে আপনি আরো ভালো ফলাফল পাবেন।

উপকরণ

  • ১ টেবিল চামচ মুলতানি মাটি
  • ১ টেবিল চামচ মধু
  • ১ টেবিল চামচ পেঁপের পেস্ট

কিভাবে বানাবেন

  • মুলতানি মাটি, মধু এবং পেঁপের পেস্ট প্রতিটি ১ টেবিল চামচ করে মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করুন।
  • পরিষ্কার মুখে ভালোভাবে লাগিয়ে নিন এবং পুরোপুরি শুকিয়ে যাওয়ার পর ধুয়ে ফেলুন।

নিখুঁত ত্বক পেতে সপ্তাহে ২ অথবা ৩ বার ব্যবহার করুন।

৮. রোদে পোড়া ভাব দূর করতে মুলতানি মাটি এবং নারিকেল পানির ফেইস প্যাক
রোদে পুড়ে যাওয়া মুখ থেকে রেহাই পাবার উপায় খুজছেন? ট্যানিং সারা বিশ্বের একটি ফ্যাশন হিসেবে মনে করা যেতে পারে, কিন্তু কখনও কখনও এটি সত্যিই যন্ত্রণাদায়ক হতে পারে। যাইহোক, আপনি মুলতানি মাটি এবং নারিকেল পানির মিলিত শক্তির কারণে এই ট্যান থেকে মুক্তি পেতে পারেন। মুলতানি মাটি এবং নারিকেল উভয়ই তাদের শীতলকারী প্রাকৃতিক বৈশিষ্ট্যের জন্য পরিচিত। তাই, এই প্যাকটি আপনার মুখের রোদে পুড়া ভাব দূর করে এবং আপনার ত্বককে উজ্জ্বল করে তুলে।

উপকরণ

  • ১ টেবিল চামচ মুলতানি মাটি
  • ১ টেবিল চামচ নারিকেল পানি
  • ১ চা চামচ চিনি

কিভাবে বানাবেন

  • মুলতানি মাটি সাথে নারিকেল পানি মিশান এবং সামান্য চিনি মিশিয়ে নিন।
  • আক্রান্ত জায়গা গুলোতে লাগান এবং গরম পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

ভালো ফলাফলের জন্য সপ্তাহে ২ বার লাগান।

৯. ব্রণের দাগের জন্য মুলতানি মাটি এবং লেবুর রসের ফেইস প্যাক
অবাধ্য ব্রণ থেকে মুক্তি পেতে চান? মুলতানি মাটিই আপনাকে মুক্তি দিবে। আপনার ত্বকে মাত্রাতিরিক্ত তেল নিঃসরণের ফলে অনিয়ন্ত্রিত ভাবে ব্রণ বৃদ্ধি পেতে থাকে। আপনি এই বিশেষ ফেইস প্যাকটি ব্যবহার করে ব্রণকে চিরবিদায় জানাতে পারেন।

উপকরণ

  • ২ টেবিল চামচ মুলতানি মাটি
  • ১ টেবিল চামচ লেবুর রস
  • ১ চা চামচ গোলাপ জল

কিভাবে বানাবেন

  • সব উপকরণগুলো ভালোভাবে মিশিয়ে একটি মসৃণ পেস্ট তৈরি করুন।
  • পানি দিয়ে আগে মুখ পরিষ্কার করে নিন। তারপর এই ফেইস প্যাকটি আপনার মুখে লাগান। প্রায় ৩০ মিনিট ধরে এটি শুকাতে দিন।
  • কুসুম গরম পানি দিয়ে এটি ধুয়ে ফেলুন।

প্রতিদিন এই প্যাকটি ব্যবহার করলে এটি আপনার ত্বকে তেলের নিঃসরণ নিয়ন্ত্রন করতে সাহায্য করবে এবং ব্রণ হওয়া প্রতিরোধ করবে।
বিঃদ্রঃ আরো ভালো ফলাফলের জন্য আপনি নিম পাতার পাউডার এবং লবঙ্গের পাউডার এই পেস্টের সাথে মিশাতে পারেন।

কিভাবে সঠিকভাবে মুলতানি মাটির ফেইস প্যাক বানাবেন
ফেইস প্যাক বানানো সহজ কাজ এবং এটার জন্য খুব বেশি দক্ষতার প্রয়োজন নেই। এটা অনেকটা জুস তৈরি করার মতই – শুধু আপনাকে আপনার উপকরণগুলো সম্পর্কে জানতে হবে। সবচেয়ে সেরা অংশটি হলো আপনি আপনার ঘরে বসেই অনায়াসে এটি বানাতে পারবেন।

সঠিকভাবে মুলতানি মাটির ফেইস প্যাক বানানোর জন্য একটি প্লাস্টিকের বাটি নিন এবং তাতে মুলতানি মাটি ঢালুন। এখন, এতে বিভিন্ন উপকরণ ঢালুন (যেমন দুধ, মধু বা গোলাপ জল) এবং একটি মসৃণ পেস্ট তৈরি করুন যাতে কোন বুদবুদ না থাকে।

আপনার পেস্টটি যাতে খুব বেশি ঘন বা খুব বেশি পাতলা না হয় সেই দিকে লক্ষ্য রাখুন। আপনি এতে বার বার আপনার আঙ্গুল ডুবিয়ে এর ঘনত্ব পরীক্ষা করে দেখতে পারেন। যদি প্যাকটি খুব বেশি দানাদার এবং আঠালো হয় তাহলে আপনাকে এতে আরো মুলতানি মাটি যোগ করতে হবে। আর যদি এটা খুব রুক্ষ মনে হয়, তাহলে কয়েক ফোঁটা গোলাপ জল এতে মিশিয়ে নিন।

মনে রাখবেন, মুলতানি মাটি মুখে লাগানোর পরপরই আপনার বাটিটা ধুয়ে ফেলবেন। কারন, মুলতানি মাটি খুব তাড়াতাড়ি শক্ত হয়ে যায়, যা পরে ধুতে গেলে সমস্যা সৃষ্টি করতে পারে।

মুলতানি মাটির ফেইস প্যাক ব্যবহারের উপকারিতা
চলুন মুলতানি মাটি ব্যবহারের উপকারিতাগুলো দেখে নেইঃ

  • এই উপাদানের বৈশিষ্ট্যগুলো আপনার ত্বকের বন্ধ হয়ে যাওয়া ছিদ্রগুলো খুলে দিতে সাহায্য করে এবং আপনার ত্বক পরিষ্কার করে।
  • মুলতানি মাটি মৃত কোষগুলো অপসারণ করে এবং আপনার ত্বককে উজ্জ্বল করে তুলে।
  • জানা গেছে, মুলতানি মাটি সবসময় ব্যবহার করলে আপনার ত্বকের গঠনকে অনেকগুলো ভাগে উন্নতি করে।
  • ফেইস প্যাকটি আপনার মুখে সমানভাবে ম্যাসাজ করলে আপনার মুখের রক্ত প্রবাহ বৃদ্ধি পাবে যা আপনার ত্বকে পুষ্টি জোগাবে এবং ত্বককে দীপ্তিময় করে তুলবে।
  • এর প্রাকৃতিক শোষন ক্ষমতার জন্য মুলতানি মাটি তৈলাক্ত ত্বকের অধিকারী মানুষের কাছে এক রকম আশীর্বাদ স্বরূপ হয়ে গিয়েছে। প্রতিদিন মুলতানি মাটি ব্যবহার করলে এটি ত্বকের অতিরিক্ত তেল বের করে ফেলে এবং আপনার ত্বককে মসৃণ করে তুলে।
  • এটি ব্রণ কমাতেও কার্যকরী ভূমিকা পালন করে।

মুলতানি মাটি সকল ধরণের ত্বকের জন্যই উপযোগী। তাই প্রতিদিন মুলতানি মাটি ব্যবহার করে আপনার ত্বককে আরো উজ্জ্বল, কোমল ও প্রাণবন্ত করে তুলুন। আর তার জন্য উপরে উল্লেখিত ফেইস প্যাকগুলো আপনার অনেক কাজে আসবে।