খালেদা জিয়ার ঘাড় ও কোমরের হাড়ে সমস্যা পাওয়া গেছে

Problem found in Khaleda Zia's neck and waist boneমেডিকেল বোর্ডের প্রধান জানিয়েছেন, এক্সরে রিপোর্টে বেগম খালেদা জিয়ার ঘাড় ও কোমরের হাড়ে সমস্যা পাওয়া গেছে।

মঙ্গলবার সকালে খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্য পরীক্ষার রিপোর্ট মেডিকেল বোর্ডের হাতে পৌঁছায়। পরে সাংবাদিকদের এসব তথ্য জানান বোর্ডের প্রধান।

ডা. শামসুজ্জামান বলেন, ‘প্রতিবেদনগুলো পর্যালোচনা করে দেখা যায়, তাঁর রক্তের পরীক্ষাগুলো সব স্বাভাবিকই আছে। তবে উনার এক্স-রে রিপোর্টে দেখা যায়, উনার ঘাড়ে ও কোমরের হাড়ে কিছুটা সমস্যা আছে। তবে আমরা আগে যে চিকিৎসা দিয়েছি, সেই চিকিৎসাই চলবে। বোর্ডের প্রতিবেদন পর্যালোচনা করে মতামতটি ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালকের কাছে দেবো। আজই দেবো। পরিচালক তা কারা কর্তৃপক্ষের কাছে দেবেন।’

গত ৭ এপ্রিল, কারান্তরীণ বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার এক্স-রে রিপোর্ট পাওয়া গেলে তা ঢাকা কেন্দ্রীয় কারগার কর্তৃপক্ষের কাছে পাঠানো হবে বলে জানিয়েছিলেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল আব্দুল্লাহ আল হারুন।

শনিবার বেলা পৌনে ২টার দিকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের মিল্টন হলে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতাল পরিচালক এই তথ্য নিশ্চিত করেন।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. আবদুল্লাহ আল হারুন বলেছেন, বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার হাড়ের বিভিন্ন অংশে এক্স-রে করা হয়েছে। আগামীকাল রিপোর্ট পাওয়া যাবে। রিপোর্ট পেলে বিস্তারিত জানানো যাবে। তবে আপাতত দৃষ্টিতে মনে হয়েছে তিনি ভালো আছেন।

ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. আবদুল্লাহ আল হারুন বলেন, বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার শারীরিক পরীক্ষা-নিরীক্ষা করার জন্য তাকে হাসপাতালে আনা হয়। হাসপাতালে আসার পর তাকে কেবিনে রাখা হয়। তারপর তিনি হেঁটেই এক্স-রে রুমে আসেন।

তিনি বলেন, বেগম খালেদা জিয়ার ইচ্ছা অনুযায়ী তার ব্যক্তিগত চারজন চিকিৎসকের উপস্থিতিতে হাড়ের বিভিন্ন অংশে এক্স-রে করা হয়েছে। তারা হলেন- ডা. মামুন, ডা. এফ এম সিদ্দিকী, ডা. ওয়াহিদুর রহমান ও ডা. শুভ।

আবদুল্লাহ আল হারুন বলেন, খালেদা জিয়ার চিকিৎসার জন্য যে চার সদস্যের মেডিকেল টিম গঠন করা হয়েছিল তাদের পরামর্শ অনুযায়ী এই পরীক্ষা-নিরীক্ষা করা হয়েছে। আগামীকালই এই রিপোর্ট পাওয়া যাবে। রিপোর্ট পেলে বিস্তারিত জানানো যাবে।

তিনি বলেন, আগামীকাল আমরা এই রিপোর্ট কারা কর্তৃপক্ষকে বুঝিয়ে দেব। তারা আবার মেডিকেল বোর্ডকে পাঠাবে। তবে আপাতত দৃষ্টিতে মনে হয়েছে তিনি সুস্থ আছেন। আমরা হুইল চেয়ার প্রস্তুত রেখেছিলাম। কিন্তু বেগম খালেদা জিয়া নিজেই বলেছেন, আমি হেঁটে যেতে পারবো, হুইল চেয়ারের প্রয়োজন নেই।

হাসপাতালে পৌছানোর পর খালেদা জিয়াকে প্রথমে কেবিন ব্লকে ৫১২ নম্বর কক্ষে নেওয়া হয়। এখানে তিনি বিশ্রাম নেন এবং তার পছন্দ অনুযায়ি ৪ চিকিৎসকের সঙ্গে এই এক্স-রে সম্পর্কে কথা বলেন।

এরপর স্বাস্থ্য পরীক্ষা শেষে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল কলেজ বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) হাসপাতাল থেকে ফের নাজিমউদ্দিন রোডের পুরাতন কেন্দ্রীয় কারাগারে ফিরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয় বিএনপি চেয়ারপারসন খলেদা জিয়াকে। শনিবার বেলা ২টার দিকে তিনি কারাগারে পৌঁছান। কারা কর্তৃপক্ষ সূত্র এই খবর নিশ্চিত করেছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here